1. meheralibachcu@gmail.com : Meher Ali Bachcu : Meher Ali Bachcu
  2. anarulbabu18@gmail.com : Anarul Babu : Anarul Babu
  3. mahabub3044@gmail.com : Mahabub Islam : Mahabub Islam
  4. dainikmeherpurdarpon@gmail.com : meherpurdarpon :
  5. n.monjurul3@gmail.com : monjurul : monjurul
  6. banglahost.net@gmail.com : rahad :
গাংনীতে মিথ্যা সংবাদ সম্মেলনের প্রতিবাদ - দৈনিক মেহেরপুর দর্পণ
মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৯:২৯ অপরাহ্ন

গাংনীতে মিথ্যা সংবাদ সম্মেলনের প্রতিবাদ

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৩০ মে, ২০২২
  • ২২৩ বার পঠিত

মেহেরপুরের গাংনীতে সাংবাদিক বিল্লাল হোসেন, গ্রাম পূর্ব মালসাদহ, ৬ নং ওয়ার্ড, গাংনী পৌরসভা, গাংনী, মেহেরপুর। গত কাল ২৯-০৫-২০২২ ইং তারিখে আমার বিরুদ্ধে ভূমি দস্যু এ এস আই আঃ সালাম এর পক্ষে তার পুত্র সাইদুর রহমান একটি সংবাদ সম্মেলন করেন। উক্ত সংবাদ সম্মেলনে আমার বিরুদ্ধে আনীত সকল অভিযোগ মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ করছি। আমি ভূমি দস্যু আ: সালাম এর বিরুদ্ধে কখনই সংবাদ সম্মেলন বা কোথাও কোন প্রকারের অভিযোগ করি নাই। ভূমিদস্যু আঃ সালাম তার পুত্র কে দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে শাক দিয়ে মাছ ঢাকার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আঃ সালাম এর পুত্র দাবী করেন ১২ অক্টোবর ২০১২ সালে ৪৮২ নং আর এস
খতিয়ান ভুক্ত ৪১ শতক জমি রুহুল আমিন এর নিকট হতে ইসারন নেছা ক্রয় করেন। অথচ উক্ত জমির
উপর ০৩-০৪-২০১২ ইং তারিখে গাংনী সহকারী জজ আদালত দেং ৯৩/২০১২ মামলা দায়ের করা হয়।
আদালতে মামলা করার প্রায় ৭ মাস পর উক্ত জমির উপর তথ্য গোপন করে ভূমি দস্যু আঃ সালাম রুহুল
আমিন এর নিকট হতে ক্রয় করে তার স্ত্রী ইসারন নেছার নামে দলিল করে দেন। বিজ্ঞ আদালত মামলা পর্যবেক্ষন করে ১৫-০৯-২০২০ ইং তারিখে মোশারফ হোসেন দিং এর পক্ষে রায় এবং ডিগ্রি প্রদান করেন।
নামজারী কেসের হোল্ডিং ভুক্ত ৬৩ নং কাষ্টদহ মৌজার আর এস ৪৮২ নং খতিয়ান ভুক্ত আর এস ১১৮/১১৭২ নং দাগের সমুদয় ৪১ শতক জমি কর্তন করে আবেদন কারী মোঃ মোশারফ হোসেন গং এর নামে ৭৯৫ নং নতুন খতিয়ান অনুমোদন করেন। ভূমি দস্যু আঃ সালাম এর পুত্র আরো বলেন আমরা উক্ত জমি দখলের অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। অথচ উক্ত জমি আমাদের পারিবারিক কবর স্থান। আজ থেকে প্রায় ৩০ বছর আগে আমার দাদাকে ঐ জমিতে দাফন করা হয় এবং প্রায় ১৬ বছর আগে আমার ছোট চাচাকে ঐ জমিতে দাফন করা হয় এবং প্রায় ১২ বছর আগে আমার দাদীকে ঐ জমিতে দাফন করা হয়। ঐ জমিতে বর্তমানে মোট ৩ টি কবর দৃশ্যমান রয়েছে। ঐ জমি ৪ জেনারেশন পূর্ব থেকে আমাদের দখলে রয়েছে।
ভূমি দস্যু আ: সালাম এর পুত্র আরো দাবী করেন মৃত নবীছদ্দি এর স্ত্রী পরিছন নেছা বিজ্ঞ আদালতের রায়ের
বিরুদ্ধে মিস কেস করেছেন। মিস কেস করার নিয়ম হচ্ছে ৯০ দিনের মধ্যে অথচ উনারা মিসকেচ করেছেন
১৬৫ দিন পর। ভূমি দস্যু আ: সালাম এর পুত্র আরো বলেন আমি নাকি তার মেজ চাচার খুনের আসামি।
আমি কখনই কোন থুনের আসামি ছিলাম না। লোক মুখে শুনেছি ভূমি দস্যু আঃ সালাম এর মেজ ভাইকে খুন
করেছে হবিবুর নামের এক জন এবং সেই থুনের আসামি ছিলেন একজন। আদালত তাকে জাবতজীবন
কারাদণ্ড দেন এবং তিনি যশোর জেলে সাজাপ্রাপ্ত অবস্থায় মৃত্যু বরন করেন।
আমি পেশায় এক জন সাংবাদিক। আমি দীর্ঘ সময় অত্যান্ত সুনামের সাথে আমার দ্বায়িত্ব পালন করে
আসছি। ভূমি দস্যু আঃ সালাম গং আমাকে সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন এবং আমার সুনাম ক্ষুন্ন করার জন্য
অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আমি আপনাদের মাধ্যমে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছে আকুল আবেদন তদন্ত
করে দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থাগ্রহণ করার জন্য বিশেষ ভাবে অনুরোধ করছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Bangla Webs